রেলওয়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা রনির পাশে গোলাম রব্বানী

0
131

রেল মন্ত্রণালয়ের অব্যবস্থাপনা এবং দূর্নীতির বিরুদ্ধে ৬ দফা দাবি নিয়ে কমলাপুরে স্টেশনে অবস্থান নেয়া মহিউদ্দিন রনির পাশে অবস্থান নিলেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী। আজ মঙ্গলবার নিজের ফেসবুক পেইজ থেকে লাইভে কমলাপুর স্টেশন থেকে যুক্ত হন তিনি।

এসময় তিনি কমলাপুর রেলস্টেশনে থাকা একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে রেলওয়ের অব্যবস্থাপনা এবং যাত্রী দুর্ভোগ নিয়ে কথা বলেন। সেইসঙ্গে আন্দোলনরত মহিউদ্দিন রনির সাথে বেশ কিছুক্ষণ সময় অবস্থান করেন।

মহিউদ্দিন রনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ঢাবির থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের ছাত্র। গত ৭ তারিখ থেকেই ছয় দফা দাবি নিয়ে কমলাপুর স্টেশনে হাজির হন তিনি। মূলত রাজশাহী ভ্রমণের টিকেট কাটতে গিয়েই ভোগান্তির শিকার হন এই তরুণ। এরপরই মূলত প্রতিবাদস্বরূপ অবস্থান গ্রহণ করেন রনি।

এসময় গোলাম রব্বানী বলেন, রেলমন্ত্রী সুজন ভাই (নুরুল ইসলাম সুজন) অত্যন্ত ভালো মানুষ। আমার পরিচিত, তিনি ডাকসুর সাধারণ সমাপদক ছিলেন, অ্যাডভোকেট মানুষ, আমারই ডিপার্টমেন্টের বড়ভাই। মাননীয় রেলমন্ত্রী সুজন ভাই, আপনাকে উদ্দেশ্য করে বলছি, সেদিন একটা বিষয় নিয়ে কথা হচ্ছিলো, আপনি রেল মন্ত্রণালয়ের সর্বোচ্চ ব্যক্তি হিসেবে রেলওয়ের দূর্নীতি, অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা, হয়রানি সবকিছু নিয়ে মানুষ আপনার কাছেই যাবে।

তিনি বলেন, আপনি ভোট নিয়ে এসেছেন, জনগণের ম্যান্ডেট নিয়ে এসেছেন। আমি এখানে দাঁড়িয়ে বলছি, আপনার ডিপার্টমেন্টের ছোটভাই হিসেবে বলছি, করজোড়ে বলছি, যদি পারেন এই অনিয়ম-দূর্নীতি বন্ধ করেন, না পারলে পদত্যাগ করেন।

উল্লেখ্য, মহিউদ্দিন রনির এই ছয় দফার মাঝে রয়েছে-

১. টিকেট ক্রয়ের ক্ষেত্রে সহজ.কম কর্তৃক যাত্রী হয়রানি অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে। হয়রানির ঘটনায় তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

২. যথোপযুক্ত পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে টিকেট কালোবাজারি প্রতিরোধ করতে হবে।

৩. অনলাইন-অফলাইনে টিকেট ক্রয়ের ক্ষেত্রে সর্ব সাধারণের সমান সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে।

৪. যাত্রী চাহিদার সাথে সংগতি রেখে ট্রেনের সংখ্যা বৃদ্ধিসহ রেলের অবকাঠামো উন্নয়নে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে।

৫. ট্রেনের টিকেট পরীক্ষক ও তত্ত্বাবধায়ক সহ অন্যান্য দায়িত্বশীলদের কর্মকান্ড সার্বক্ষণিক মনিটর, শক্তিশালী তথ্য সরবরাহ ব্যবস্থা গড়ে তোলার মাধ্যমে রেলসেবার মান বৃদ্ধি করতে হবে।

৬. ট্রেনে ন্যায্য দামে খাবার বিক্রি, বিনামূল্যে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ ও স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here