ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ছিনতাই হওয়া ৪০ ভরি স্বর্ণ উদ্ধার হলো পুলিশের বাসা থেকে

0
207

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ছিনতাই করা ৪০ ভরি স্বর্ণ পুলিশের এএসআইয়ের বাসা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় ভাঙ্গা থানার এএসআই বাবুলসহ দুজনকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) দুপুরে ভাঙ্গা থানার ওসি সেলিম রেজা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে বুধবার (১৩ জুলাই) বিকেলে তাদের আটক করা হয়। তবে পুলিশের বিশেষ অভিযানে এএসআই বাবুলের ভাড়া বাসা থেকে ৪০ ভরি স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, ঢাকা জেলার ধামরাই থানার গাংগুটিয়া গ্রামের হারুন অর রশিদের ছেলে সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. বাবুল হোসেন (৩৫) ও ভাঙ্গা পৌরসভার হোগলাডাঙ্গী সদরদীর মিজানুর রহমান মুন্সির ছেলে মেহেদী হাসান মৃদুল মুন্সী (২৪)।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ৭ জুলাই রাতে ভাঙ্গা পৌরসদরের বাজারের স্বর্ণকারপট্টির পলাশ বণিকের সোনারতরী জুয়েলার্স থেকে কয়েকটি স্বর্ণের বার কেনেন নড়াইলের লোহাগড়ার পাপ্পু বিশ্বাস নামের এক স্বর্ণ ব্যবসায়ী। এ সময় একই দিন রাত সাড়ে ১২টায় একটি ভ্যানগাড়িতে পাপ্পু ও তার বন্ধু বিজয় লোহাগড়ার উদ্দেশে রওনা দেন। পরে স্বর্ণপট্টি পার হতেই সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) বাবুল ও তার সহযোগী তাদের গতিরোধ করেন। এ সময় চোরাই স্বর্ণ পাচার করছেন, এমন অভিযোগ তুলে পাপ্পুকে অস্ত্রের মুখে ভয় দেখান বাবুল। পরে তার পকেটে থাকা মোট ১১টি স্বর্ণের বারের মধ্যে চারটি স্বর্ণের বার ছিনিয়ে নেন তিনি। এ সময় তাদের চুপচাপ চলে যেতে বলেন তারা।

ভাঙ্গা থানার ওসি সেলিম রেজা জানান, এএসআই বাবুল হোসেন ও তার সোর্স মেহেদী হাসানকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। তবে এএসআই বাবুল হোসেনের বাসা থেকে ৪০ ভরি স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়। এরই মধ্যে এ ঘটনায় ভাঙ্গা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here