আমার মা-বাবা মৃত্যুপথযাত্রী, দেশে যেতে তুই বাধা দেস বলেই কানাডায় হাইকমিশনারকে মারধর

0
2690

ছয় মাস ধরে পাসপোর্ট আটকে রাখার অভিযোগে কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার খলিলুর রহমানকে প্রকাশ্যে গালিগালাজ ও মারধর করেছেন হাই কমিশনের সাবেক কর্মচারী ইউসুফ হারুন।

রোববার (১৭ জুলাই) কানাডার অটোয়ার একটি পার্কে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ইউসুফ হারুনের বিরুদ্ধে মামলাও দায়ের করেছে হাই কমিশন। বাংলাদেশি কমিউনিটির সদস্যরা এ ঘটনায় হতবাক হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ১৭ জুলাই একটি পিকনিকের আয়োজন করে বাংলাদেশ কানাডা অ্যাসোসিয়েশন অব অটোয়া ভ্যালি (বাকাওভ)। সেখানে অতিথি ছিলেন কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশ হাই কমিশনার খলিলুর রহমান। অনুষ্ঠানে র‌্যাফল ড্রর পুরস্কারসহ নানা আয়োজনে অংশ নেন তিনি। অনুষ্ঠান শুরুর এক ঘণ্টা পর বাংলাদেশ হাই কমিশনের সাবেক কর্মচারী ইউসুফ হারুন চেঁচিয়ে উঠে বলেন, ‘আমি বাংলাদেশের নাগরিক। বাংলাদেশ আমার জন্মভূমি। আমার অধিকার পাসপোর্ট দিচ্ছেন না হাই কমিশনার খলিল। ’ এ সময় বাকাওভের কর্মকর্তারা তাকে নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু ইউসুফ হারুন এ সময় বলেন, ‘আমার মা-বাবা মৃত্যুপথযাত্রী। শালা তুই আমাকে বাংলাদেশে যাইতে বাধা দেস। ’

কথাগুলো বলেই হাই কমিশনার খলিলকে কিল-ঘুষি মারতে থাকেন ইউসুফ হারুন। এরপর হাই কমিশনার খলিলকে ধাক্কা মেরে মাটিতে ফেলে দেন ইউসুফ হারুন। পরে বাকাওভের কর্মকর্তারা পুলিশ ডেকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

অটোয়ার পুলিশ জানায়, একটি নিয়মিত মামলা দায়ের হয়েছে। বিষয়টি তারা তদন্ত করে দেখছে।

হাই কমিশন থেকে মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করা হলেও এর বেশি মন্তব্য করতে চাননি কেউ।

ইউসুফ হারুন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘হাই কমিশনার আমার জীবন অতিষ্ঠ করে তুলেছেন। তার কারণে আমি আত্মহত্যাও করতে গিয়েছিলাম। ’

উল্লেখ্য, ইউসুফ হারুন এর আগে বিভিন্ন সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী, সচিবসহ সরকারের ঊর্ধ্বতনদের কাছে হাই কমিশনারের বিষয়ে চিঠি দিয়েছেন। অভিযোগ, তার বাংলাদেশি পাসপোর্ট খলিলুর রহমান ছয় মাস ধরে আটকে রেখেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here