রণক্ষেত্র ভোলা: পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষে নিহত ১, আহত শতাধিক

0
229

আল এমরান, ভোলা
বিদ্যুতের সীমাহীন লোডশেডিং ও জ্বালানি খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে ভোলা জেলা বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশের হামলায় আ.রহিম নামে একজন বিএনপিকর্মী নিহত হয়েছেন।

রোববার (৩১ জুলাই) জেলা বিএনপির কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালীন এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আ. রহিম সদর উপজেলার দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড কোরালিয়া এলাকার বাসিন্দা।

এতে শতাধিক বিএনপিকর্মী ও কিছু পুলিশ সদস্য আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ইতোমধ্যে অনেকের অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ার কারণে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদেরকে বরিশাল পাঠানো হচ্ছে।

বিদ্যুতের লোডশেডিং ও জ্বালানি খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ভোলা জেলা বিএনপি তাদের নিজ কার্যালয়ের বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে।

মিটিং শেষ করে সমাবেশ চলাকালে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ লাঠিচার্জ ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। একপর্যায়ে বিএনপি নেতাকর্মীরাও পুলিশের সাথে ইটপাটকেল ছুঁড়ে সংঘর্ষে জড়ায়। তাতে একজন নিহত ও শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

ভোলা জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর ফেস দ্যা পিপলকে বলেন, বিদ্যুতের লোডশেডিং ও জ্বালানি খাতে অব্যবস্থপনার প্রতিবাদে আমরা মিটিং শেষ করে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করতেই পুলিশ আমাদেরকে অতর্কিত হামলা করে। পুলিশ ও ডিবি লাঠিচার্জ, গুলি ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করার কারণে আমাদের একজন কর্মী নিহত ও শতাধিক আহত হয়েছেন৷ সংকটাপন্ন অবস্থায় ৫ থেকে ৬ জনকে বরিশাল পাঠানো হচ্ছে। এই অবস্থায় নিজেকে অবরুদ্ধ দাবি করে তিনি বলেন বিচ্ছিন্নভাবে আমাদের অনেক নেতাকর্মীদেরকে পুলিশ গ্রেফতার করছে, তবে এ পর্যন্ত মোট কতজন গ্রেফতার হয়েছে তা পরে জানাতে পারবো।

সরকারের সমালোচনা করে সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আসিফ আলতাফ বলেন, সরকারের পায়ের নিচে মাটি নেই। তাই সরকার এখন পিঁপড়ে গর্জন দিলেও ভয় পায়। যার উদাহরণ ভোলার আজকের ঘটনা এবং এই দ্বায় সরকারকেই নিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আহত নেতাকর্মীদেরকে সদর হাসপাতালে পর্যন্ত থাকতে দিচ্ছে না পুলিশ, আমরা অনেক কষ্ট করে আহতদেরকে বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছি।

ভোলা সদর মডেল থানা অফিসার ইনচার্জের (ওসি) সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেয়া যায়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here