সেতুতে টোল চাওয়ায় ৬ কর্মীকে পেটালো ছাত্রলীগ

0
98

কুষ্টিয়ায় মাস-উদ রুমী সেতুতে টোল চাওয়ায় টোল প্লাজায় কর্তব্যরত ৬ কর্মীকে বেধড়ক পিটিয়েছেন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। এতে ওই টোল প্লাজার ৬ কর্মী আহত হয়েছেন। এ সময় টোল প্লাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনাও ঘটে।

শুক্রবারের (১৯ আগস্ট) এ ঘটনার সময় নিজেদের কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছেন বলেও দাবি করেছে ছাত্রলীগ।

আহতদের কয়েকজনকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালসহ স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তবে পুলিশের দাবি এটি একটি তুচ্ছ ঘটনা।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ঘটনার ভিডিও ফুটেজ ছড়িয়ে পড়ায় এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছে। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী এবং ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে কুষ্টিয়া সরকারি কলেজে জেলা ছাত্রলীগের শোক দিবসের আলোচনা সভা ছিল। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি। সভায় অংশগ্রহণ করার জন্য কুমারখালী ছাত্রলীগের একদল নেতা-কর্মী মোটরসাইকেলে কুষ্টিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। এ সময় মাছ-উদ রুমী সেতুর পশ্চিম দিকের টোল প্লাজায় পৌঁছলে সেখানে দায়িত্বরত একজন কর্মী একটি মোটরসাইকেল থামানোর চেষ্টা করেন। এসময় পেছন থেকে আরও ৩০ থেকে ৪০টি মোটরসাইকেল ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায়। প্রত্যেক মোটরসাইকেলে ছাত্রলীগের দুই থেকে তিনজন করে কর্মী ছিলেন।

নেতা-কর্মীরা এ সময় মোটরসাইকেল থেকে নেমেই টোল প্লাজায় দায়িত্বরত কর্মীদের ওপর চড়াও হন এবং কিলঘুসিসহ লাঠিসোটা নিয়ে তাদের মারপিট শুরু করেন।

ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়, টোলঘরে আদায় করা অর্থ একটি গামলা থেকে একজন তুলে নিচ্ছেন। সেখানেও দায়িত্বরত একজনকে পেটানো হয়।

টোল প্লাজায় দায়িত্বরত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স মাইক্রো ডাইনামিকের ম্যানেজার শামীম আহমেদ জানান, বেলা ১১টার দিকে একটি মোটরসাইকেলে আসা যুবকের কাছ থেকে টোল চাইলে ওই মোটরসাইকেলে থাকা যুবক টোল আদায়কারীর ওপর চড়াও হন এবং পেছন থেকে ৩০-৪০টি মোটরসাইকেল যোগে আসা যুবকরা এসে অতর্কিত হামলা চালায় টোল আদায়কারীদের ওপর। এ ঘটনায় অন্ততপক্ষে ৬ জন টোল আদায়কারী আহত হন। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, হামলার সময় টাকাও ছিনিয়ে নেন ওই যুবকরা। হামলাকারীরা ছাত্রলীগের নেতাকর্মী বলে তিনি দাবি করেন।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ হাফিজ চ্যালেঞ্জ জানান, বিষয়টি শুনেছি। তবে আমার কর্মীদের ওপর টোল প্লাজায় দায়িত্বরত কর্মীরা হামলা চালিয়েছে। এতে বেশ কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী আহত হয়েছেন।

কুমারখালী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নাজমুল হোসেন দাবি করেন, শোকসভায় পৌঁছাতে দেরি হয়ে গিয়েছিল বলে নেতা-কর্মীরা সবাই দ্রুত টোল প্লাজা পার হতে চাচ্ছিলেন। এ সময় টোল প্লাজার কর্মচারীরা বাধা দেন এবং নেতা-কর্মীদের কটূক্তি করায় সেখানে বাগবিতণ্ডা এবং হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, বিষয়টি শুনেছি। এটি একটি তুচ্ছ ঘটনা। এ বিষয়ে কেউ এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ করেনি।

সেতুটির ইজারাদার কুষ্টিয়া পৌরসভার বর্তমান মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা আনোয়ার আলীর ছেলে পারভেজ আনোয়ার তনু। হামলার বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, ঘটনাস্থলে একাধিক সিসি ক্যামেরা রয়েছে। সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখলেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে কারা এ হামলা চালিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here