অডিও কান্ডের পর ফের বিতর্কে ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি রিভা

0
339

সম্প্রতি রাজধানীর ইডেন মহিলা কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভার একটি অডিও ফাঁস হওয়ার ঘটনায় বেকায়দায় পড়ে ক্ষমা চাওয়ার পর আবারও বিতর্কে জড়িয়েছেন তিনি। 

সেই অডিও ফাঁসের ঘটনায় এবার দুই ছাত্রীকে ৭ ঘণ্টা আটকে রেখে নির্যাতন এবং নগ্ন করে ভিডিও ধারণ করে ভাইরাল করার হুমকির দিয়েছেন বলে অভিযোগ ছাত্রলীগের এই নেত্রীর বিরুদ্ধে।

ভুক্তভোগীদের এ গুরুতর অভিযোগ অস্বীকার করে রিভা দাবি করেছেন, তিনি উল্লিখিত সময়ে হলে ছিলেন না।

ভুক্তভোগী ছাত্রীরা জানান, সেই অডিও ফাঁস হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে রিভা মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে রাজিয়া হলের ২০২ নাম্বার কক্ষ থেকে বঙ্গমাতা হলের ১১০৭ নাম্বার রুমে নিয়ে যান দুই ছাত্রীকে। বিকেল ৫.৩০টা পর্যন্ত সেখানে দুজনকে আটকে রাখেন।

এরপর খবর পেয়ে ইডেন কলেজের অধ্যক্ষ সুপ্রিয়া ভট্টাচার্য ও রাজিয়া হলের প্রাধ্যক্ষ নারগিস রুমা গিয়ে দুজনকে হল অফিসে নিয়ে আসেন।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা আরও জানিয়েছেন, সেই অডিও কে রেকর্ড করল আর ফাঁস করল – তা জানতে তাদের সকাল ১১টা থেকে বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত রিভার কক্ষে আটকে রাখা হয়।

রাজিয়া বেগম হলের প্রাধ্যক্ষ নার্গিস রুমা
দুই ছাত্রীকে রিভার কক্ষে আটকে রাখার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আমরা এসেছি। ঘটনার তদন্ত করব।

অভিযুক্ত নেত্রী তামান্না জেসমিন রিভা বলেন, একটা মহল আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে সংবাদ করাতে চাইছে। আমি কাকে নাকি নির্যাতন করেছি এমন বর্ণনা নিয়ে তারা এটা করাতে চাইছে। আমি সকাল থেকে ক্যাম্পাসের নিচে আমাদের প্রোগ্রাম নিয়ে সবার সঙ্গে ছিলাম। সন্ধ্যার পরে পার্টি অফিসে গেছি। তারা যে সময়ের কথা বলছে আমি সে সময়ে ছিলামই না।

এর আগে তামান্না জেসমিন রিভার একটি অডিও ক্লিপ ফাঁস হয়। যেখানে ছাত্রলীগের কর্মসূচিতে না যাওয়ার কারণে কক্ষে রাজিয়া বেগম ছাত্রীনিবাসের ২০২ নম্বর রুমের কয়েকজন ছাত্রীকে বের করে দেওয়ার হুমকি দিতে শোনা যায় তামান্নাকে।

সেই অডিও অনুযায়ী তামান্না বলছিলেন, ‘বেশি চ্যাটাং চ্যাটাং করতেছিস। এক পায়ে পাড়া দিমু, আরেক পা টাইনা ধইরা ছিঁড়া ফেলমু। চার মাস হয়ে গেছে ফাইজলামি শুরু করছিস৷ তোরা লিগ্যাল তাতে আমার…। কোন হ্যাডাম দেখাইতেছিস তোরা? আমার পলিটিক্যাল রুমে তোরা লিগ্যাল থাকবি কি না, সেটা তোদের বিষয়। কে কে টাকা জমা দিছিস? আমারে দিছিস? বুঝিস না, পলিটিক্যাল রুমে থাকিস! তোদের লিগ্যাল করাইছে, তাতে আমার…? আমি যদি একটা সিট না দেই, ২০২ থেকে তোদের কোন বাপ সিট দেবে? ম্যাডামরা দেবে? ক্ষমতা আছে ম্যাডামদের?’

একপর্যায়ে এক ছাত্রীকে বলতে শোনা যায়, ‘ও তো অসুস্থ, বাসায় গেছে।’

তামান্না বলেন, ২০২-এ আর লিগ্যাল কে? তোরা লিগ্যাল, তাতে আমার কি…?আমি কি…তোদের? ম্যাডামদের ক্ষমতা আছে, আমাদের রুম থেকে একটা মেয়েকে বের করার?

রিভা বলেন, ইডেন কলেজের প্রিন্সিপালেরও ক্ষমতা নেই এই রুম থেকে একটা মেয়েকে বের করার। রুমটা যেহেতু ইডেন কলেজের প্রেসিডেন্ট নিয়ে নিছে, ইডেন কলেজের প্রেসিডেন্টের ওপরে আর কেউ নাই। একদম গলায় পাড়া দিয়ে ধরতে ইচ্ছা করতেছে।

শুক্রবার রাতেই তামান্না নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ভাইরাল অডিওর বিষয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে ক্ষমা চান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here