সকালে কর্মস্থলে আসার সুবিধার্থে ব্যাংক কর্মকর্তাকে রাত ১০ টায় ঘুমানোর নির্দেশ

0
137

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে রূপালী ব্যাংকের এক কর্মকর্তাকে সকাল ৯টার মধ্যে কর্মস্থলে উপস্থিত হওয়ার সুবিধার্থে রাত ১০ টার মধ্যে ঘুমিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়ে চিঠি প্রদান করা হয়েছে। চিঠিতে রূপালী ব্যাংকের সিল এবং শাখা ব্যবস্থাপকের সাক্ষর রয়েছে। চিঠির একটি কপি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

কাশিয়ানী উপজেলার জয়নগর রূপালী ব্যাংক শাখার জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা মো. শহীদুল ইসলামকে মঙ্গলবার এ নির্দেশনার চিঠি দেন ব্যাংকের ম্যানেজার মো. মফিজুর রহমান। যদিও এই চিঠিতে ম্যানেজারের সাক্ষর জাল করা এবং নিছক মজা করার জন্য দেয়া হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়ে- ‘উপযুক্ত বিষয় এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের স্মারক নম্বর ডিওএস ৩১ অনুসারে জনাব মো. শহিদুল ইসলাম, সিনিয়র অফিসারকে এই মর্মে জানানো যাচ্ছে যে, ব্যাংকিং কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য আপনাকে সকাল ৯ ঘটিকায় কর্মস্থলে উপস্থিত হওয়ার সুবিধার্থে রাত ১০ ঘটিকার মধ্যে ঘুমিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা প্রদান করা হল।’

এই প্রসঙ্গে ব্যাংকের ম্যানেজার মো. মফিজুর রহমান তার স্বাক্ষর জাল করা হয়েছে দাবি করে বলেন, ‘ব্যাংকের অপর এক সিনিয়র অফিসার স্বপন সিকদার ফান করে শহিদুল ইসলামকে এই চিঠি পাঠিয়েছেন। তারা দু’জন ব্যাচমেট। এ ফান করা চিঠিই ভাইরাল হয়েছে। এ ব্যাপারে আমি কিছুই জানতাম না।’

ম্যানেজার জানান, ‘সিনিয়র অফিসার শহিদুল ও স্বপনকে শোকজ করা হয়েছে। আগামী ৩ দিনের মধ্যে তাদের এর জবাব দেয়ার জন্য বলা হয়েছে।’

রূপালী ব্যাংকের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, ‘আসলে মজা করতে গিয়ে ধরা খেয়ে গেছে। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের সিল ব্যবহার করে এমন মজা কেউ করতে পারে কী না জানতে চাইলে তিনি বলেন, না, এই ধরণের কর্মকাণ্ড একটি গুরুত্ব অপরাধ। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার কাছে এ ব্যাপারে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here