অবশেষে চা শ্রমিকদের নতুন মজুরি নির্ধারণ; কাজে ফিরতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

0
71

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও চা মালিকদের বৈঠক শেষে চা শ্রমিকদের ন্যূনতম দৈনিক মজুরি ১৭০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া আন্দোলনরত চা শ্রমিকদের রবিবার থেকেই কাজে যোগ দেয়ার জন্য বলা হয়েছে। ৩০০ টাকার দৈনিক মজুরির দাবিতে আন্দোলন শুরু হলেও আপাতত ১৭০ টাকা নির্ধারণ করেছে সরকার।

আজ শনিবার বিকাল সোয়া ৪টায় গণভবনে দেশের বৃহৎ ১৩টি চা বাগান মালিকদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউস।

মুখ্য সচিব বলেন, দৈনিক ১৭০ টাকা সর্বনিম্ন মজুরির সঙ্গে বোনাস, বার্ষিক ছুটি ভাতা আনুপাতিক হারে বাড়বে। বেতনসহ উৎসব ছুটি আনুপাতিক হারে বাড়বে। অসুস্থতাজনিত ছুটির টাকা ও ভবিষ্যত তহবিলে নিয়োগকর্তার চাঁদা আনুপাতিক হারে বাড়বে। বার্ষিক উৎসব ভাতাও আনুপাতিক হারে বাড়বে।

সব মিলে ন্যূনতম মজুরি দৈনিক প্রায় সাড়ে ৪শ থেকে ৫শ টাকা পড়বে বলে জানান আহমদ কায়কাউস।

চা শ্রমিকদের সাথেও প্রধানমন্ত্রী আলাপ করবেন জানিয়ে মুখ্য সচিব জানান, শিগগিরই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আলোচনা করবেন।প্রধানমন্ত্রী আগামীকাল (রবিবার) থেকেই সবাইকে কাজে যোগ দিতে বলেছেন।

উল্লেখ্য, গত ৯ আগস্ট থেকে দুই ঘণ্টা করে কর্মবিরতি এবং পরে ১৩ আগস্ট অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট পালন করছেন চা শ্রমিকরা। শ্রমিকদের টানা ধর্মঘটে স্থবির চা শিল্প। প্রশাসন থেকে শুরু করে চা শ্রমিক সংগঠনের নেতারা কয়েক দফায় চেষ্টা করেও শ্রমিকদের কাজে ফেরাতে পারেননি।

এদিকে ভরা মৌসুমে মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে শ্রমিকদের টানা ১৭ দিনের আন্দোলনের কারণে কয়েকশ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে চা শিল্পে। শ্রমিকদের আন্দোলনের প্রথম দিকে সব চা বাগানে উত্তোলন করা কাঁচা চায়ের পাতা সময়মতো প্রক্রিয়াজাত করতে না পারায় পচে ও শুকিয়ে নষ্ট হয়ে গেছে বলে জানা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here