এশিয়া কাপে মুস্তাফিজকে নিয়ে যা বললেন নির্বাচক হাবিবুল বাশার

0
53

এশিয়া কাপে প্রথম টি-টোয়েন্টি অন্তর্ভুক্ত হয়েছিল ২০১৬ সালে। ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত সেবারের টুর্নামেন্টে ফাইনালিস্ট ছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ। তবে শিরোপা জেতা হয়নি ভারতের কাছে। সেদিনের ফাইনালে ছিলেন না তরুণ পেসার মুস্তাফিজ। অনেকের কাছেই ফাইনালে সেদিনের হারের পেছনে ফিজের ইনজুরিই বড় কারণ।

মূলত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবেই সেবার এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই হয় এই সংস্করণে। এবারেও ঠিক তাই। তবে টি-টোয়েন্টিতে সাম্প্রতিক ফরম্যাট এখন অন্তত টাইগারদের পক্ষে কথা বলছে না। আর সেইসাথে ঘুরে ফিরে আসছে ফিজের নাম। ফিজ এখন অভিজ্ঞ। তবে পুরাতন সেই ধার যে আর নেই। স্লো পিচ ছাড়া মুস্তাফিজ বড়ই বিবর্ণ।

সব টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলার আশাও এবার বাংলাদেশ করছে না। দেশ ছাড়ার আগে সাকিবও তাই বলে গেছেন, অন্তত সুপার ফোরে খেলতে চান তারা।

তবে এক্ষেত্রে তুরুপের তাস হতে পারেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমানে। সবশেষ বিশ্বকাপেও আরব আমিরাতের স্লো পিচ ছিলো আলোচনায়। সেকারণেই কিনা আশা, ফিজ এবার ফিরবেন। 

আফগানিস্তান ম্যাচেই তাকে তার সেরা ফর্মে দেখতে চান জাতীয় দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার। শনিবার বাংলাদেশের ঐচ্ছিক অনুশীলনে উপস্থিত ছিলেন মুস্তাফিজ। দুবাই ক্রিকেট একাডেমি মাঠে রাত নয়টায় শুরু হওয়া এই নেট সেশনে অনেকটা সময় ধরে বোলিং করেন মুস্তাফিজ।

দুবাইয়ে শুক্রবার দলের অনুশীলনের ফাঁকে গণমাধ‍্যমকর্মীদের মুখোমুখি হয়ে এই জাতীয় নির্বাচক বললেন, বাঁহাতি এই পেসারের সেরা ফর্ম দলের জন্য কতটা জরুরি, ‘মুস্তাফিজ অবশ‍্যই আমাদের জন‍্য অত‍্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একজন বোলার। ওর পারফরম‍্যান্স দলের জয়-পরাজয়ে অনেকখানি প্রভাব ফেলে। ওকে ভালো ফর্মে, সেরা ফর্মে পাওয়াটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। ’

হাবিবুল বাশারও জানেন মুস্তাফিজ ফর্মে নেই। তবে আশাবাদী সাবেক এই ক্যাপ্টেন। তিনি বলেন, ‘অতীতে কিন্তু মুস্তাফিজ অনেক ভালো ম‍্যাচ খেলেছে আমাদের জন‍্য। অনেক ভালো বোলিং করেছে। সব সময় তো আর ভালো পারফরম‍্যান্স হয় না, ওরও বাজে দিন গেছে। যেখানে আমরা ভুগেছি। তবে এটা হতেই পারে। আমি আশা করছি যে, এই টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই আমরা মুস্তাফিজের সেরাটা পাব। যেটা আমাদের জন‍্য খুব গুরুত্বপূর্ণ হবে প্রথম রাউন্ড পার হতে। ’

তবে, ফিজের গ্রাফ আপাতত নিম্নমুখী। টি-টোয়েন্টিতে সবশেষ ১৪টি বোলিং ইনিংসে তার উইকেট ৯টি। সবশেষ ১১ টি-টোয়েন্টির চারটিতে তিনি রান দিয়েছেন ওভারপ্রতি দশের বেশি। সবশেষ জিম্বাবুয়ে সফরে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ৪ ওভারে দিয়েছেন ৫০ রান!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here